Home >> Story >> হিচকি

Film Review

হিচকি

  • পরিচালনা: সিদ্ধার্থ পি মলহোত্র

    অভিনয়: রানি মুখোপাধ্যায়, নীরজ কবি, হর্ষ মায়ার, সচিন পিলগাঁওকর, সুপ্রিয়া পিলগাঁওকর, শিবকুমার সুব্রহ্মণ্যম প্রমুখ 

    সিদ্ধার্থ পি মলহোত্র পরিচালিত ‘হিচকি’ চলচ্চিত্রের ট্যাগলাইন ‘হোয়াট ইজ় লাইফ উইদাউট আ ফিউ হিকাপস!’ অর্থাৎ গুটিকতক হেঁচকি-ই যদি না উঠল চলার পথে, তবে আর জীবনের মানে কী! রানি মুখোপাধ্যায় অভিনীত নয়না মাথুর চরিত্রটিও তেমনই বেশ কিছু হেঁচকি সামলে, ভয় এবং অসহায়তার চোখে চোখ মিলিয়েছেন এই ছবিতে।  

    একাধিক স্কুলে শিক্ষিকার চাকরির ইন্টারভিউতে বিফল নয়না (টুরেট সিনড্রোম নামের বিরল স্নায়ুর ব্যাধিতে আক্রান্ত) শহরের একটি নামী স্কুলে শিক্ষিকার চাকরি পান। রাইট ফর এডুকেশনের দৌলতে নিম্নবিত্ত পরিবারের চোদ্দোটি ছেলেমেয়ে ওই স্কুলে পড়ার সুযোগ পেয়েছে। কিন্তু আর্থ-সামাজিক কারণে পৃথক করে রাখা হয় তাদের। এই অবমাননার প্রত্যুত্তরে তারাও অবাধ্য, ইচ্ছাকৃতভাবে অমনোযোগী। এদেরকে পড়ানোর দায়িত্ব পেয়ে কোমর বেঁধে নেমে পড়ে নয়না, কীভাবে সফল হয় তার উত্তর আছে ছবিতে।

    ‘মরদানি’-র (২০১৪) চার বছর পর রানি মুখোপাধ্যায়কে বড় পরদায় দেখা গেল। আরও পরিণত হয়েছেন তিনি। নয়নার চরিত্র জীবন্ত হয়ে উঠেছে তাঁর অভিনয়ে। টুরেটে আক্রান্ত নয়নার অসহায়তা, ভাই বিনয়ের সঙ্গে ছোট ছোট আনন্দ ভাগ করে নেওয়ার উচ্ছ্বাস, ছাত্রছাত্রীদের সাফল্যে গর্বিত হয়ে ওঠার অনুভূতি চমৎকার ফুটে উঠেছে রানির চোখে-মুখে। এই নারী-কেন্দ্রিক ছবিটিতে রানি একাই একশো, একথা জোর দিয়ে বলা চলে। তাছাড়া, জাতীয় পুরস্কার প্রাপ্ত হর্ষ মায়ার, সচিন-সুপ্রিয়া, ‘নীল বাটে সন্নাটা’ খ্যাত রিয়া শুক্ল, নয়নার প্রধান প্রতিপক্ষ ওয়াডিয়ার চরিত্রে নীরজ কবি প্রত্যেকেই প্রশংসনীয় কাজ করেছেন। 

    তবে ‘হিচকি’ যদিও হলিউডের ছবি ‘ফ্রন্ট অফ দ্য ক্লাস’-এর (ব্র্যাড কোহেনের আত্মজীবনীর চলচ্চিত্রায়ণ) অফিশিয়াল রিমেক, ছবিটির মধ্যে কয়েকটি বলিউডি ছবির প্রভাব ভীষণ স্পষ্ট। ফলে কোথাও যেন হারিয়ে যায় ছবিটির মৌলিকত্ব। ছবির চিত্রনাট্যেও চোখে পড়ে কিছু ত্রুটি, যা শেষপর্যন্ত ঢাকা পড়ে না ভাল অভিনয় কিংবা জাসলিন রয়ালের ‘ইন্সপিরেশনাল’ সংগীত-এ। ফলে অভিনয়-দক্ষতা, শিল্প-নির্দেশনা, চিত্রগ্রহণ, সংলাপে উজ্জ্বল হলেও, সম্পাদনা, চিত্রনাট্য ও পরিচালনার ‘হিচকি’ রয়েই গেল।