মন্তব্য

ঘরে বাইরে

  • পাণ্ডুলিপি দর্শন

     

    ছাপা অক্ষরে বই পড়ার আনন্দ তো আছেই, কিন্তু চোখের সামনে যদি দেখা যায়, পছন্দের কোনও লেখার আঁকিবুঁকি, কাটাকুটি সমেত হাতে লেখা পাণ্ডুলিপি, তার মূল্য পাঠকের কাছে অন্যরকম বই কী! ইংরেজি ভাষায় রোম্যান্টিক এবং ভিক্টোরিয়ান লেখকদের ম্যানুস্ক্রিপ্ট এবার দেখা যাবে ঘরে বসেই, ব্রিটিশ লাইব্রেরির ওয়েবসাইটের মাধ্যমে। জেন অস্টেন, এমিলি ব্রন্টি, চার্লস ডিকেন্স প্রমুখ লেখকের বইয়ের আদিরূপ এবার চোখের সামনে। প্রেসে ছাপার জন্য যে-লেখা তৈরি করা হত, সেই ফেয়ার কপি নয়, একেবারে খসড়া অবস্থাতেই দেখা যাবে শব্দ-অক্ষরগুলি। যেমন, এমিলি ব্রন্টির ডায়েরির ২৬ জুন ১৮৩৭ তারিখের একটি পৃষ্ঠায় দেখা যাচ্ছে তাঁর আঁকা ছবি ও লেখা। সংরক্ষণের এই বোধ বঙ্গদেশে হবে কি?

     

    শুনশান কেনিয়া

     

    কেনিয়ার প্রাকৃতিক সৌন্দর্য এতদিন সে-দেশে টেনে এনেছে অগণিত পর্যটককে, কিন্তু সন্ত্রাসবাদ কেবল ধ্বংসই করে চলে স্বাভাবিকতা, সৌন্দর্য। আল-শাবাব জঙ্গিদলের চোখরাঙানিতে কেনিয়া থেকে পালিয়ে আসছেন বিভিন্ন দেশের টুরিস্ট, কারণ এঁরাই জঙ্গিদের আক্রমণের লক্ষ্য। কেনিয়ার রাজপথে, ভিড়ে ঘটছে বিস্ফোরণ, প্রাণ হারাচ্ছেন সাধারণ মানুষ। আমেরিকা, অস্ট্রেলিয়ায় সরকারের পক্ষ থেকেই কেনিয়ায় বেড়াতে যেতে নিষেধ করা হচ্ছে। গত বছরই নাইরোবি শপিং মলে জঙ্গি হানায় মারা গিয়েছিলেন প্রায় ৬৭জন। সন্ত্রাসবাদের কুত্‌সিত আগ্রাসন দেখে চলেছে বিশ্ববাসী।

     

    ভিড়ে ঠাসা ব্রাজ়িল, তবু...

     

    না, ব্রাজ়িল থেকে ফুটবল-পাগল মানুষকে অত সহজে সরানো যাচ্ছে না, কারণ আর দিনকয়েক পর থেকেই সেখানে শুরু হবে বিশ্বকাপ। তবু চূড়ান্ত উন্মাদনা, নিষ্পাপ ফুটবল-প্রীতি কেবলই রূপ নিচ্ছে রক্তক্ষয়ী হাতাহাতিতে! তাই সেখানে যাওয়ার আগে পর্যটকদের দেওয়া হচ্ছে ‘ট্র্যাভেল ওয়ার্নিং’! ব্রাজ়িলের যা অর্থনৈতিক অবস্থা, সাধারণ মানুষ সেখানে যে-দৈন্যে থাকেন, সেখানে বিশ্বকাপের জন্য এত টাকা খরচ করা সরকারের মানায় না। এই নিয়েই যত অশান্তি, গন্ডগোল। ফুটবল কি আর সব কষ্ট ঘুচিয়ে দিতে পারে!

You may like