Home >> Story >> ভোর

ধারাবাহিক উপন্যাস

ভোর

সায়ন্তনী পূততুন্ড

পূর্বানুবৃত্তি: বুধিয়া বৈদূর্য আর জয়ন্তকে জানায়, কনুর বাড়িতে আগুন লাগিয়েছে ভুরা। ভুরাকে খুঁজে পাওয়া গেল না। জেরায় কনু বলে, ভুরা বেআইনি বন্দুক আনিয়েছিল। জেরা চলাকালীন হঠাত্‌ই অফিসের টেবিলের ভাঙা কাচ নিজের বুকে বসিয়ে দেয় কনু, তার মৃত্যু হয়। মা গৌরীর কোলে মাথা রেখে শুয়ে থাকা সুমন্তর আর্তচিত্‌কারে বাংলোর রক্ষীরা ছুটে এসে দেখে, গৌরী আর সুমন্তর সামনে মাউজ়ার অ্যান্ড পলিন রাইফেল হাতে দাঁড়িয়ে আছে জ্যাক নাইন। এদিকে সকালে জগিং করার সময় শিঞ্জিনী দেখে, বিট অফিসের সামনে রক্তাপ্লুত একটা লোক একটা লেপার্ডের গলা চেপে ধরেছে। তার বজ্রমুষ্টির চাপে লেপার্ডটার জিভ প্রায় বেরিয়ে এসেছে।

কিছুক্ষণের মধ্যেই বনরক্ষীরা লেপার্ডটাকে উদ্ধার করল। সত্যি বলতে কী, লেপার্ডটাকেই আগে উদ্ধার করা প্রয়োজন ছিল। দু’জনের মধ্যে তার অবস্থাই বেশি খারাপ। এতক্ষণ ধরে নিষ্ফল থাবা ছুঁড়তে ছুঁড়তে সে হাঁফিয়ে গেছে। তার উপর তার প্রতিদ্বন্দ্বী এতক্ষণ ভীমশক্তিতে গলা জড়িয়ে ধরেছিল। বনরক্ষীরা তাকে ছাড়িয়ে নিতেই সে একেবারে জিভ বের করে নেতিয়ে পড়ল। লেপার্ডটার দম নিতে কষ্ট হচ্ছে দেখে বনরক্ষীরা ত্রস্তব্যস্ত হয়ে স্থানীয় পশুচিকিত্‌সকের কাছে ছুটল।

জয়ন্ত এগিয়ে এসে লোকটির দায়িত্ব নিল। প্রাথমিক চিকিত্‌সার পর তাকে হাসপাতালে পাঠাতে হবে। ক্ষতস্থান ভাল করে ধুয়ে দিতে দিতে সে বলল, ‘হঠাত্‌ করে লেপার্ডটাকে ধরলি কেন? তোর উপরে লাফিয়ে পড়েছিল?’

লোকটা জবাব দিল, ‘নহি সাব। মুঝ পর নহি, উয়ো বদমাস মেরি গাইকো খানে চলা থা!’

জয়ন্ত দীর্ঘশ্বাস ফেলে। হয়তো গোটা ব্যাপারটাই সে বুঝে নিয়েছে। কিন্তু শিঞ্জিনীর কৌতূহল তখনও মেটেনি। লেপার্ডটা লোকটাকে খেতে যায়নি। বরং ওর গোরুটাকে খেতে যাচ্ছিল। তবে সে নিজে লেপার্ডটাকে চেপে ধরল কেন? আর যাই হোক, লেপার্


TO READ THE REST OF THIS PIECE, SUBSCRIBE NOW

You may like